জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম ২০২৪

জিপিএফ ব্যালেন্স হলো সরকারি কর্মচারীদের জন্য সাধারণ ভবিষ্যৎ তহবিল (জিপিএফ) একটি গুরুত্বপূর্ণ সঞ্চয় প্রকল্প। নিয়মিত চাকরিরত থাকাকালীন কর্মচারীদের বেতন থেকে নির্দিষ্ট অংশ কেটে রাখা হয় এবং তা সরকার কর্তৃক পরিচালিত জিপিএফ খাতায় জমা করা হয়। অবসর গ্রহণের পর কর্মচারীরা এই জমা টাকা সুদ সমেত ফেরত পান।

জিপিএফ কি?

১৯৭৯ ভবিষ্যৎ তহবিল বিধিমালা অনুযায়ী জিপিএফ হলো সরকারি কর্মচারীগণ যাদের চাকরির বয়স দুই বছর হয়েছে। তারা চাইলে ভবিষ্যৎ তহবিল বা জিপিএফ চাঁদা জমা করতে পারবেন। যা চাকরির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে জমাকৃত অর্থের ১১% থেকে ১৩% হারে মুনাফা পাবেন জিপিএফ সদস্য। জিপিএফ এর Full meaning হলো: General Provident Fund (সাধারণ প্রভিডেন্ট ফান্ড)। যা সুধু মাত্র সরকারি কর্মচারীগণদের জন্য প্রযোজ্য হবে। বর্তমানে জিপিএফ সঞ্চয় বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

জিপিএফ ব্যালেন্স জানার প্রয়োজনীয়তাঃ

  1. সচেতন থাকা: আপনার জিপিএফ তহবিলে কত টাকা জমা আছে তা নিয়মিত জেনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ। এতে আপনি আপনার আর্থিক পরিকল্পনা করতে এবং ভবিষ্যৎ চাহিদা মেটাতে সাহায্য করবে।
  2. ভুল শনাক্তকরণ: মাঝে মাঝে জিপিএফ হিসাবে ত্রুটি হতে পারে। নিয়মিত ব্যালেন্স চেক করে আপনি এই ধরনের ভুল শনাক্ত করতে পারবেন এবং সংশোধনের জন্য পদক্ষেপ নিতে পারবেন।

  3. সিদ্ধান্ত গ্রহণ: অবসর গ্রহণের পরিকল্পনা, ঋণ গ্রহণ, বা অন্যান্য আর্থিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স জানা গুরুত্বপূর্ণ।

জিপিএফ ব্যালেন্সে চেক | GPF balance check

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক


অনলাইনে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার জন্য যেকোন ব্রাউজার থেকে চলে আসুন এই ঠিকানায়: https://www.cafopfm.gov.bd/ অথবা ব্রাউজারের সার্চবারে GPA balance check লিখে সার্চ করুন এবং সার্চ রেজাল্টে আসা প্রথম ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এখন জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার জন্য GPF Information থেকে ‘Click Here’ অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনার NID/Smart ID ও Phone number দিয়ে ‘Submit’ অপশনে ক্লিক করে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।
  • NID/Smart ID ও
  • Phone number
এখানে অব্যশই জিপিএফ হিসাব খোলার সময় যেই NID ও Phone নম্বর ব্যবহার করেছেন সেটি ব্যবহার করুন। তারপর নিচে থেকে ‘Submit’ অপশনে ক্লিক করুন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

যাদের ১৩ ডিজিটের NID নাম্বার তাদের জন্ম তারিখ সহ বসাতে হবে। তারপর Convert অপশনে ক্লিক করে আপনার NID কে ১৩ ডিজিট থেকে ১৭ ডিজিট সংখ্যায় পরিবর্তন করতে হবে। তাহলে আপনি ১৩ ডিজিট NID ব্যবহার করে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন। 

Submit অপশনে ক্লিক করার পর আপনার দেওয়া প্রদত্ত নম্বরে ৬ ডিজিটের একটি OTP কোড পাঠানো হবে। সেটি সংগ্রহ করে Please enter OTP অপশনে বসিয়ে পুনরায় ‘Submit’ অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার সামনে নতুন একটি পেইজ ওপেন হবে। এখন GPF ACCOUNTS SLIP অপশন থেকে Fiscal Year (অর্থ বছর) সিলেক্ট করে ‘Go’ বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার সামনে জিপিএফ একাউন্ট স্লিপ ওপেন হয়ে যাবে। আপনি সেখান থেকে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

জিপিএফ হিসাব খুলবেন যেভাবে

আপনি যদি একজন সরকারি চাকরিজীবী হয়ে থাকেন এবং আপনার চাকরির বয়স যদি দুই বছর পূর্ণ হয়। তাহলে বাধ্যতামূলকভাবে আপনাকে জিপিএফ হিসাব খুলতে হবে। আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে জিপিএফ হিসাব খোলার আবেদন করতে পারবেন না। তবে এর জন্য আপনাকে অনলাইনে কিছু কাজ এবং মেনুয়ালি কিছু কাজ করতে হবে। আমরা এই দুটি বিষয়কে দুটি ক্যাটাগোরিতে ভাগ করব।
  1. GPF Account Open and Nominee Entry
  2. Print and Upload Account Opening Form

GPF Account Open and Nominee Entry

জিপিএফ হিসাব খোলার জন্য যেকোন ব্রাউজারের সার্চ বারে Ibas++ লিখে সার্চ করুন। তারপর সার্চ রেজাল্টে আসা প্রথম ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। তাহলে এরকম একটি পেইজ দেখতে পাবেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

আপনার User ID, Password ও নিচে থেকে ক্যাপচাটি পূরণ করে Login অপশনে ক্লিক করুন। ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড আপনার জানা থাকলে তো ভালো। আর জানা না থাকলে কর্মরত প্রতিষ্ঠান প্রধানের সাথে যোগাযোগ করলে এ বিষয়ে জানতে পারবেন।

যাইহোক, ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড ও ক্যাপচা দিয়ে লগইন করা পর উপর থেকে 3 ডট অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার সামেন অনেক গুলো অপশন চলে আসবে। সেখান থেকে ‘GPF Account Opening’ অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার সামনে একটি ফর্ম ওপেন হবে। এখন ফর্মে থাকা তথ্য গুলো সঠিকভাবে পূরণ করুন। যেমনঃ
  1. GPF account information
  2. Subscription information &
  3. Nominee Information
জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

তথ্যগুলো ভালোভাবে পূরণ করার পর Nominee তথ্য add করে নিন। তাহলে Print অপশন Enable হয়ে যাবে। তাহলে আমাদের প্রথম ধাপের কাজ শেষ হবে।

Print and Upload Account Opening Form

Print অপশনে ক্লিক করে ফরমটি ডাউনলোড বা Print করে নিন। ফরমটি প্রিন্ট করে ফরমে উল্লেখিত নিয়মে স্বাক্ষর করে সেটি স্ক্যান করে ডিভাইসে সেভ করে নিন। এখন Select file অপশনে ক্লিক করে ফরমটি আপলোড করে দিন।

ডকুমেন্ট আপলোড হওয়ার পর সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার নম্বরে একটি OTP কোড যাবে সেটি বসিয়ে কনফর্ম করলে আপনার আবেদনটি সাবমিট হয়ে যাবে। এখানে আপনার আর কোন কাজ নেই বাকি কাজ গুলো একাউন্টস অফিস বা কর্তৃপক্ষ করে দিবে।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

অনলাইন জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার উপায় সমূহ:

ক্যাফওপিএফএম ওয়েবসাইটে যান: https://cafopfm.gov.bd/bn

ব্যক্তিগত জিপিএফ তথ্যাদি অপশনে ক্লিক করুন।

আপনার ভোটার আইডি নম্বর এবং মোবাইল নম্বর প্রদান করুন।

“Submit” ক্লিক করুন।

আপনার মোবাইলে একটি OTP (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) পাঠানো হবে।

OTP প্রদান করুন এবং Submit ক্লিক করুন।

আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স স্ক্রীনে প্রদর্শিত হবে

এসএমএস এর মাধ্যমে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার উপায়

  1. আপনার মোবাইল ফোন থেকে GPF <ভোটার আইডি নম্বর> টাইপ করে 01711-123456 নম্বরে এসএমএস পাঠান।

  2. উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনার ভোটার আইডি নম্বর 123456789 হয়, তাহলে আপনাকে এটি পাঠাতে হবে: GPF 123456789

  3. কিছুক্ষণ পরে, আপনার মোবাইলে একটি এসএমএসের মাধ্যমে আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স পাঠানো হবে

অফলাইনে জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার উপায়ঃ

  1. আপনার নিকটতম জিপিএফ অফিসে যান।

  2. জিপিএফ ব্যালেন্স এনকোয়ারি ফর্মটি পূরণ করুন। ফর্মটি সাধারণত জিপিএফ অফিসে পাওয়া যায়।

  3. প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করুন-ভোটার আইডি নম্বর

  4. জিপিএফ অ্যাকাউন্ট নম্বর - যদি জানা থাকে

  5. যোগাযোগের তথ্য (মোবাইল নম্বর, ইমেল ঠিকানা)

  6. ফর্মটি জমা দিন এবং প্রয়োজনীয় ফি প্রদান করুন। ফি সাধারণত খুব কম।

  7. কিছুক্ষণ পরে, একজন কর্মকর্তা আপনাকে আপনার জিপিএফ ব্যালেন্সের একটি প্রিন্টেড কপি প্রদান করবেন।

ব্যক্তিগত জিপিএফ তথ্য

ব্যক্তিগত জিপিএফ তথ্য দেখার জন্য ibas++ ওয়েবসাইটে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। তারপর Budget Execution থেকে সাইটে প্রবেশ করুন।তাহলে মেনুবারে ব্যক্তিগত জিপিএফ তথ্য গুলো দেখতে পাবেন।

জিপিএফ স্লিপ

জিপিএফ স্লিপ দেখার জন্য যেকোন ব্রাউজারের সার্চবারে GPF slip online bd লিখে সার্চ করুন। তারপর সার্চ রেজাল্টে আসা প্রথম ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। তাহলে এরকম একটি পেইজ দেখতে পাবেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

পেইজটি একটু স্ক্রোল করে ‘GPF Information’ অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার সামনে একটি পেইজ ওপেন হবে। এখন NID/Smart ID ঘরে আপনার ১৭ ডিজিটের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বরটি বসিয়ে দিন এবং Phone No ঘরে আপনার GPF একাউন্ট রেজিস্ট্রেড ফোন নম্বরটি বসিয়ে ‘Submit’ বাটনে ক্লিক করুন।

তাহলে আপনার সামনে নতুন একটি পেইজ ওপেন হবে। এখন Accounts slip অপশন থেকে Fiscal Year সিলেক্ট করে Go অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনি আপনার জিপিএফ স্লিপটি দেখতে পাবেন।
জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার ফ্রিঃ

  1. জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার জন্য কোনো ফি নেই।

  2. আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স সম্পর্কে যদি কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে আপনি জিপিএফ অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন।

  3. নিয়মিত আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করুন এবং আপনার তহবিল সম্পর্কে আপডেট থাকুন।

জিপিএফ হিসাব খোলার ফরম

অনলাইনে ফরম পূরণ ছাড়াও আপনি চাইলে গুগল থেকে জিপিএফ ফরম ডাউনলোড করে সেগুলো হাতে লিখে পূরণ করে ওয়েবসাইটে সাবমিট করতে পারেন। নিচের ‘ফরম ডাউনলোড করুন’ অপশনে ক্লিক করে। নিম্নের ফরম দুটি ডাউনলোড করে নিন। 
  • জিপিএফ একাউন্ট খোলার ফরম ও
  • জিপিএফ নমিনি ফরম

জিপিএফ হিসাব থেকে লোন
আপনি যদি একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়ে থাকেন এবং আপনার যদি জিপিএফ সঞ্চয় একাউন্ট থাকে তাহলে আপনি জমাকৃত অর্থের ৭৫% পার্সেন্ট জিপিএফ লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে লোন নেওয়ার পর সর্বনিম্ন ১২টি কিস্তি ও সর্বোচ্চ ৪৮ টি কিস্তিতে লোনের অর্থ পরিশোধ করতে হবে।

 চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক কিভাবে জিপিএফ হিসাব থেকে লোন নেওয়া যায়। জিপিএফ হিসাব থেকে লোন নেওয়ার জন্য হিসাবরক্ষণ অফিস বা ibas++ থেকে জিপিএফ স্লিপ সংগ্রহ করতে হবে। উপরে GPF Slip সংগ্রহ করার নিয়ম দেওয়া আছে। ফরমটি সংগ্রহ করার পর যেকোন ব্রাউজার থেকে চলে আসনু Ibas++ ওয়েবসাইটে। তারপর User ID, Password ও ক্যাপচা দিয়ে সাইটে লগইন করুন।

  তাহলে অনেক গুলো অপশন দেখতে পাবেন। সেখান থেকে Budget Execution সিলেক্ট করুন। তাহলে আপনার সামনে একটি জরুরি বিজ্ঞপ্তি ফর্ম ওপেন হবে সেটি স্ক্রোল করে নিচে গেলে দুটি প্রশ্ন দেখতে পাবেন। ১ম প্রশ্নের উত্তর হিসেবে (গ) সিলেক্ট করুন এবং ২য় প্রশ্নের উত্তরে (খ) সিলেক্ট করে নিচে থেকে Submit বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনাকে পরবর্তী পেইজে নিয়ে আসবে।

এখন 3 ডট থেকে GPF transaction অপশনে ক্লিক করুন। তারপর GPF Account Opening (For DDO) সিলেক্ট করুন। তাহলে আপনার সামনে একটি ফর্ম Open হবে।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক

এখন ফর্মে থাকা সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করা পূর্বক অফিস প্রধান বরাবর নিকট একটি দরখাস্ত দাখিল করতে হবে। অফিস প্রধান আপনার জিপিএফ আবেদন ফর্ম ও জিপিএফ স্লিপটি কর্তৃপক্ষের নিকট ফরওয়ার্ড করবে। কতৃপক্ষ আপনার ডকুমেন্ট গুলো যাচাই পূর্বক একটি মঞ্জুরি আদেশ জারি করবে। মঞ্জুরি পত্র প্রাপ্তির পর আপনার দপ্তরের মাধ্যমে bill পাশ করে জিপিএফ হিসাব থেকে লোন নিতে পারবেন। একজন ব্যক্তি চাইলে পরপর তিনটি লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

FAQ

জিপিএফ কি?

১৯৭৯ ভবিষ্যৎ তহবিল বিধিমালা অনুযায়ী জিপিএফ হলো সরকারি কর্মচারীগণ যাদের চাকরির বয়স দুই বছর হয়েছে। তারা চাইলে ভবিষ্যৎ তহবিল বা জিপিএফ চাঁদা জমা করতে পারবেন। যা চাকরির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে জমাকৃত অর্থের ১১% থেকে ১৩% হারে মুনাফা পাবেন জিপিএফ সদস্য। জিপিএফ এর Full meaning হলো: General Provident Fund (সাধারণ প্রভিডেন্ট ফান্ড)। যা সুধু মাত্র সরকারি কর্মচারীগণদের জন্য প্রযোজ্য হবে। বর্তমানে জিপিএফ সঞ্চয় বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

জিপিএফ ব্যালেন্স জানার প্রয়োজনীয়তা?

সচেতন থাকা: আপনার জিপিএফ তহবিলে কত টাকা জমা আছে তা নিয়মিত জেনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ। এতে আপনি আপনার আর্থিক পরিকল্পনা করতে এবং ভবিষ্যৎ চাহিদা মেটাতে সাহায্য করবে। ভুল শনাক্তকরণ: মাঝে মাঝে জিপিএফ হিসাবে ত্রুটি হতে পারে। নিয়মিত ব্যালেন্স চেক করে আপনি এই ধরনের ভুল শনাক্ত করতে পারবেন এবং সংশোধনের জন্য পদক্ষেপ নিতে পারবেন। সিদ্ধান্ত গ্রহণ: অবসর গ্রহণের পরিকল্পনা, ঋণ গ্রহণ, বা অন্যান্য আর্থিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আপনার জিপিএফ ব্যালেন্স জানা গুরুত্বপূর্ণ।

জিপিএফ হিসাব থেকে লোন নেওয়ার নিয়ম

আপনি যদি একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়ে থাকেন এবং আপনার যদি জিপিএফ সঞ্চয় একাউন্ট থাকে তাহলে আপনি জমাকৃত অর্থের ৭৫% পার্সেন্ট জিপিএফ লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে লোন নেওয়ার পর সর্বনিম্ন ১২টি কিস্তি ও সর্বোচ্চ ৪৮ টি কিস্তিতে লোনের অর্থ পরিশোধ করতে হবে


GPF balance check on mobile,cafopfm.gov bd gpf information balance check,জিপিএফ ব্যালেন্স চেক ২০২৩,GPF information,Gpf check online,Ibas gpf balance check,Gpf information system bangladesh,জিপিএফ হিসাব।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সত্য আইটির নীতিমালামেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url